Home আমাদের সম্পর্কে

আমাদের সম্পর্কে

Open Space’ বাংলা ভাষায় রচিত একটি সম্পূর্ণ জ্যোতির্বিজ্ঞান-নির্ভর ম্যাগাজিন। জ্যোতির্বিজ্ঞান-পিপাসুদের মধ্যে জ্যোতির্বিজ্ঞান সম্পর্কিত তথ্য ও গবেষণার খুঁটিনাটি পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে ওপেন স্পেস। জোতির্বিজ্ঞানকে সহজ ভাষায় সর্বোস্তরের পাঠকের কাছে উপস্থাপন করাই ওপেন স্পেসের মূল লক্ষ্য, যেন বাংলাদেশের পাঠকরা খুব সহজেই পদচারণ করতে পারে আধুনিক বিজ্ঞানের এ চিত্তাকর্ষক ও রহস্যময় জগতে।

ওপেন স্পেস শুধু একটি ম্যাগাজিনই নয়; বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের জন্য জ্যোতির্বিজ্ঞান সম্পর্কিত পর্যবেক্ষণ, অনুসন্ধান ও গবেষণার পর্যাপ্ত দিক নির্দেশনার একটি প্ল্যাটফর্ম ওপেন স্পেস। জ্যোতির্বিজ্ঞানকে সকলের নিকট পৌঁছে দেয়া, জ্যোতির্বিজ্ঞানে আগ্রহ তৈরি করা, সর্বোপরি একটি জ্যোতির্বিজ্ঞান-পিপাসু প্রজন্ম তৈরি করার লক্ষ্যেই এগিয়ে যাচ্ছে ওপেন স্পেস।

Open Space: জ্যোতির্বিজ্ঞান চর্চায় এক স্বপ্নের নাম

প্রকৃতিকে নিয়ে মানুষের আগ্রহ জন্মগত। মাথার ওপরের আকাশে অগণিত তারা দেখে কার না মনে আগ্রহ এই তারাদের পরিচয় জানতে? ছোটবেলায় সাধারণ জ্ঞানের বইয়ে সৌরজগত দিয়ে শুরু হয় সেই আগ্রহের বিজ্ঞানভিত্তিক পাঠ। একে একে পরিচয় হয় গ্যালাক্সি, ব্ল্যাকহোল, নেবুলা, ধূমকেতুর সাথে। কল্পবিজ্ঞানের বইয়ে থাকা স্পেসশীপ, টাইম ট্রাভেল আর মহাকাশযাত্রার কথা জ্যোতির্বিজ্ঞান আগ্রহে জাগায় নতুন মাত্রা।

কিন্তু সেই আগ্রহ থেকে জ্যোতির্বিজ্ঞানকে জানার সুযোগ বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে খুবই সীমাবদ্ধ। তাত্ত্বিক জ্যোতির্বিজ্ঞানের মৌলিক বিষয়গুলো জানার জন্য বাংলা ভাষায় তেমন কোন বই নেই। জ্যোতির্বিজ্ঞানের উপর বাংলা ভাষায় লেখা বই আছে বেশ কিছু, কিন্তু এদের অধিকাংশই জ্যোতির্বিজ্ঞানের বিশেষ কোন বিষয়ের উপর রচিত, মূলধারার জ্যোতির্বিজ্ঞান চর্চায় যা খুব একটা সাহায্য করে না। ফলে জ্যোতির্বিজ্ঞান এদেশের শিক্ষার্থীদের কাছে অনেকটা কল্পবিজ্ঞানের মতই থেকে যায়।

এ সীমাবদ্ধতাগুলোকে জয় করার প্রত্যয় নিয়েই বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া জ্যোতির্বিজ্ঞানপ্রেমী শিক্ষার্থীদের নিয়ে যাত্রা শুরু করে Open Space। জ্যোতির্বিজ্ঞানকে সহজ ভাষায় শিক্ষার্থীদের কাছে পৌঁছে দেয়ার পাশাপাশি জ্যোতির্বিজ্ঞানের মৌলিক বিষয়গুলোকে শিক্ষার্থীদের কাছে তুলে ধরাই ওপেন স্পেসের প্রধান লক্ষ্য। পাশাপাশি বিভিন্ন সেমিনার, ওয়ার্কশপের মাধ্যমে গাণিতিক ও পর্যবেক্ষণমূলক জ্যোতির্বিজ্ঞানে শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্ত করাও ওপেন স্পেসের লক্ষ্য। এছাড়াও বিভিন্ন প্রতিযোগিতা ও অলিম্পিয়াড আয়োজনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মধ্যে জ্যোতির্বিজ্ঞানের উদ্দীপনা তৈরি করতে কাজ করছে ওপেন স্পেস।

২০১৭ সালের ১লা অক্টোবর আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করে ওপেন স্পেস। শুরুতে দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে যাত্রা শুরু করে, বর্তমানে দেশের শীর্ষস্থানীয় ছয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ওপেন স্পেসের সাথে সম্পৃক্ত। এছাড়াও বেশ কিছু বিজ্ঞান সংগঠনের সাথে যুক্ত হয়ে বিজ্ঞানের প্রসারে কাজ করে যাচ্ছে ওপেন স্পেস।